ঈদে নৌ- রুটে যাত্রী পারাপারে গাফলতিতে কঠোর ব্যবস্থার হুশিয়ারী

চট্টগ্রাম:  আসন্ন পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষ্যে  নৌ পথে যাত্রী সাধারণের নির্বিঘ্ন যাতায়াত, সুষ্ঠু ও নিরাপদ নৌ-পরিবহন ব্যবস্থা এবং যাত্রী নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যে আজ সোমবার ১২-০৪-২০১৭ ইং তারিখ চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ জিল্লুর রহমান চৌধুরীর সভাপত্বিতে জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা ছাড়াও বিআইডাব্লিউটিসি, বিআইডাব্লিউটিএ, জেলা পরিষদ ও কোষ্টগার্ডের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে চট্টগ্রাম- সন্দ্বীপ নৌ-রুটে ঈদে  নিরাপদ যাত্রী পারাপারে লক্ষ্যে বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এই বৈঠকে জেলা প্রশাসক জিল্লুর রহমান চৌধুরী সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশ্যে বলেন, কোন রকমের গাফলতি সহ্য করা হবেনা, কারো কোন গাফলতি পাওয়া গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত ২এপ্রিল গুপ্তছড়া ঘাটে  লালবোট ডুবিতে ১৮জনের প্রানহানির ঘটনা উল্লেখ করে জেলা প্রশাসক জিল্লুর রহমান ঘাটে নিয়োজিত ইজারাদারদের অবশ্যই নিয়ম মেনে যাত্রী পারাপার করতে হবে, সংশ্লিস্ট সরকারি দপ্তরের আরো বেশি নজরদারি থাকা প্রয়োজন।

বৈঠকে জেলা প্রশাসক সন্দ্বীপ রুটে যাত্রী পারাপারকারী বিআইডাব্লিউটিসি ও জেলা পরিষদের প্রতিনিধিদের কাছে ঈদ প্রস্তুতির বিস্তারিত জানতে চান।

জেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রেরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে   উক্ত সভার নিম্নলিখিত সিদ্ধান্তসমুহ গৃহীত হয়। ১- নৌযানের ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী বহন করা যাবে না। ২- BIWTC এর দুটি নৌযান প্রতিদিন কমপক্ষে ২ টি করে ট্রিপ দিবে। সন্ধ্যা ৬.০০ এর পর কোনভাবেই ট্রিপ দেওয়া যাবে না। ৩- নৌযান সমূহে পর্যাপ্ত জীবনরক্ষাকারী সরঞ্জামাদী থাকতে হতে। ৪- অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এছাড়াও ২১-০৬-২০১৭ ইং হতে ৩০-০৬-২০১৭ ইং পর্যন্ত সার্বিক অবস্থা তত্ত্বাবধায়নের জন্য অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কে আহবায়ক করে ১৬ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি করে দেওয়া হয়েছে।

এসএন।