ইজারাদারের হাত থেকে নিষ্কৃতি চায় সন্দ্বীপ রুটের যাত্রীরা

d

চট্টগ্রাম অফিস:বঙ্গোপসাগরের সন্দ্বীপ চ্যানেলে কুমিরা-গুপ্তছড়া রুটে লাল বোট ডুবে ১৮জনের প্রানহানির ঘটনার প্রথম বার্ষিকীতে সোমবার সকালে (২ এপ্রিল, বাংলাদেশ সময়) নিরপাদ নৌ যাতায়তের দাবিতে মানববন্ধন পালিত হয়েছে।
চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে ‘আমরা সন্দ্বীপবাসী’ আয়োজিত এই মানববন্ধনে সন্দ্বীপের বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন অংশ নেয়। ২০১৭ সালের ২এপ্রিল গুপ্তছড়া ঘাটে জাহাজ থেকে যাত্রী নিয়ে কূলে যাওয়ার সময় লাল বোট ডুবে ১৮জন নিহত হয়।
মানববন্ধন পরবর্তী এক সংবাদ সম্মেলনে ’আমরা সন্দ্বীপবাসী’র প্রধান সমন্বয়ক ডা: রফিকুল মাওলা বলেছেন, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ এই ঘাটে অবৈধ নৌযান দিয়ে যাত্রী ও মালামাল পরিবহন অব্যাহত রাখায় এখনো দুর্ঘটনার আশংকা রয়ে গেছে।
কোন ধরনের নিয়মনীতি না থাকায় জেলা পরিষদের ইজারাদার কর্তৃক যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়েরও অভিযোগ করেন তিনি।
ডা: রফিকুল মাওলা বলেন, দৈনিক প্রায় তিন হাজার যাত্রী এই ঘাট দিয়ে পারাপার করে। ঈদ পার্বন ও বিভিন্ন উৎসব উপলক্ষ্যে দৈনিক যাত্রীর পরিমাণ দ্বিগুণও ছাড়িয়ে যায়। কিন্তু এই পরিমান যাত্রী পারাপারে প্রয়োজনীয় অভিজ্ঞতা ও বৈধ নৌযান কোনটিই বর্তমান ইজারাদার কিংবা জেলা পরিষদের নেই। সমুদ্র পথে যাত্রী কিংবা মালামাল পরিবহনে’র প্রয়োজনীয় অভিজ্ঞতা ও সক্ষমতা না থাকা সত্বেও জেলা পরিষদের হাতে এই ঘাটের ব্যবস্থাপনা থাকা সন্দ্বীপের মানুষের প্রাণহানি ও অনান্য দুর্ভোগের মূল কারণ।

তিনি বলেন, জেলা পরিষদের ইজারাদার স্পীড বোট ও কাঠের তৈরী বোট দিয়ে যাত্রী পারাপার করছে। অথচ এই দুই বোটই যাত্রী পারাপারের জন্য পুরোপুরি অবৈধ ও ঝুকিপূর্ণ। এই বিষয়ে সন্দ্বীপের জনপ্রতিনিধি, সুশিল সমাজ ও যাত্রীদের পক্ষ থেকে বারবার জেলা পরিষদের দৃষ্টি গোছর করা হলেও বৈধ নৌযান চালুর বিষয়ে তারা কোন পদক্ষেপ নেয়নি কিংবা নিতে সক্ষম হয়নি।
রফিকুল মাওলা অভিযোগ করেন, অবৈধ নৌযানে ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে যাত্রী পারাপার ছাড়াও যাত্রী ও পণ্য পরিবহনে প্রচলিত নিয়মের চেয়েও দ্বিগুণ তিনগুণ ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। নৌপরিবহন মন্ত্রী স্পীড বোটের ভাড়া দুইশ টাকা আদায়ের নির্দেশ দিলেও এখনো যাত্রী প্রতি আড়াইশ টাকা নেয়া হচ্ছে। কাঠের বোট যাত্রী প্রতি ১শ থেকে ১২০ টাকা আদায় করা হচ্ছে, অথচ দেশের অনান্য অঞ্চলে এই ভাড়া সর্বোচ্চ ৪০টাকা। ৫০কেজি ওজনের পণ্যের ভাড়া নেয়া হয় ২৫ টাকা অথচ অন্য এলাকায় এই ভাড়া ১০টাকার বেশি নয়।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, সন্দ্বীপ এসোসিয়েশান চট্টগ্রামের সভাপতি ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সহ- সভাপতি একেএম বেলায়েত হোসেন, আমরা সন্দ্বীপবাসী’র সংগঠক ফোরকান উদ্দিন রিজভী, আবুল কাসেম ও মোহাম্মদ ওমর ফয়সাল।
সংবাদ সম্মেলনে একেএম বেলায়েত হোসেন বলেন, নৌ-দুর্ঘটনায় নিহত ১৮জনের পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ প্রদান ও দোষিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

Recommended For You